ব্রেকিং নিউজ :
অবৈধ ব্যাটারি রিকশা বন্ধে সুপ্রিম কোর্টের রায় বাস্তবায়ন শিগগির : চসিক মেয়র কোভিড মৃত্যুর জন্য জর্ডান হাসপাতাল প্রধানের জেল বাজেট সাপোর্টের আওতায় বিশ্বব্যাংককে প্রকল্প ঋণ প্রদানের অনুরোধ দীর্ঘদিন ক্ষমতায় না থাকায় বিএনপি নেতারা দিশেহারা : ওবায়দুল কাদের বঙ্গবন্ধু শান্তি ও সম্প্রীতিতে বিশ্বাসী ছিলেন : সায়মা ওয়াজেদ শ্রীঘ্রই জাতীয় সেচ্ছাসেবক নীতিমালা মন্ত্রিপরিষদে উত্থাপন করা হবে : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী ইউজিসির প্রফেসর হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন অধ্যাপক ডা. সজল কৃষ্ণ ব্যানার্জী আইসিটি বিভাগের প্রকল্পসমূহের আর্থিক অগ্রগতি ১৯ দশমিক ২৭ শতাংশ কেরাণীগঞ্জস্থ দোলেশ্বর হানাফিয়া জামে মসজিদের ইউনেস্কো পুরস্কার লাভ প্লাস্টিক পণ্য রপ্তানি আয় ৩০ শতাংশ বেড়েছে
  • আপডেট টাইম : 24/11/2021 04:52 PM
  • 31 বার পঠিত

জমি সংক্রান্ত এক মামলায় আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত গাজীপুর সিটি  মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলমসহ চারজনের বিষয়ে আদালত অবমাননার রুল জারি করেছে হাইকোর্ট বিভাগ।
বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামান সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ আজ এ আদেশ দেন।
আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ব্যারিস্টার আবুল কালাম আজাদ। তিনি জানান, গাজীপুরের সদর উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের একটি জমি নিয়ে বিরোধের জেরে দখলে থাকা ব্যক্তি রিট করেন। তখন আদালত নিষেধাজ্ঞা দেয়। সেই নিষেধাজ্ঞা নিয়ে আবেদনকারীরা জমি আগের মতো ব্যবহার করে আসছিলেন। কিন্তু চলতি বছরের শুরুতে মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ও তার লোকজন ওই জমি নিজের নামে পাওয়ার অব এটর্নি  আছে বলে ব্যবহারে বাধা দেন। এই অবস্থায় মেয়র জাহাঙ্গীর আলমসহ চারজনের নামে সম্প্রতি আদালত অবমাননার অভিযোগ এনে আবেদন  করেন আশরাফ উদ্দিন আহমেদ।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে জাহাঙ্গীর আলমকে আওয়ামী লীগ থেকে গত ১৯ নভেম্বর  বহিষ্কার করা হয়। 
চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে গোপনে ধারণ করা মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের কথোপকথনের একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জেলার কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করা হয়েছে বলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা অভিযোগ করেন।  
এই ভিডিও ভাইরাল হওয়ায় গাজীপুর মহানগর  আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে বহিষ্কারের দাবি জানান। গত ৩ অক্টোবর দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে জাহাঙ্গীর আলমকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। ১৮ অক্টোবরের মধ্যে জাহাঙ্গীরকে এর জবাব দিতে বলা হয়। তিনি জবাবও দেন।  
জাহাঙ্গীর আলম ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। পরে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতেও স্থান পান। এরপর গাজীপুরের সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন। পরে গাজীপুর সিটির মেয়র নির্বাচিত হন তিনি। এরপর গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদও পেয়েছিলেন জাহাঙ্গীর আলম।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...