ব্রেকিং নিউজ :
ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন মৈত্রী দিবস উদযাপন করেছে স্পেনকে টাইব্রেকারে হারিয়ে কোয়ার্টারে মরক্কো ড. ওয়াজেদ মিয়ার সমাধিতে রংপুরের নবনিযুক্ত জেলা প্রশাসকের শ্রদ্ধা থাই প্রধানমন্ত্রী ২০২৩ সালের নির্বাচনে অংশ গ্রহণের ইঙ্গিত দিলেন লালমনিরহাটে সবজি চাষিদের মাঝে খুশির জোয়ার হবিগঞ্জে আগুনে পুড়ে পুলিশের এক কনস্টেবল নিহত বাউল কামাল পাশার ১২১তম জন্মবার্ষিকী পালিত সোশ্যাল মিডিয়ায় আওয়ামী লীগ বিরোধী অপপ্রচারের যথাযথ জবাব দিতে হবে : ছাত্রলীগকে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রাইজ ফর ক্রিয়েটিভ ইকোনমি এর মনোনয়ন আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে জাপানি রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ
  • আপডেট টাইম : 24/11/2022 05:28 PM
  • 31 বার পঠিত

জীবে প্রেম করে যেই জন, সেই জন সেবিচে ঈশ্বর” এ অমর বাণী প্রতিফলিত হয়েছে কুমিল্লার কোটবাড়িস্থ বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (বার্ড) এর অফিস সহায়ক মোঃ শাহজাহানের কাজে। তিনি প্রকৃতি ও পাখিকে ভালোবাসে। কিন্তু পাখির প্রতি ভালোবাসার প্রকাশের ধরণটা একেক জনের ক্ষেত্রে একেক রকম হয়ে থাকে। কেউ বাসার খাঁচায় পাখি পোষতে ভালোবাসেন, আবার কেউ খাঁচার পাখিকে মুক্ত করে দিয়ে আনন্দ পান।
বার্ডের শাহজাহান তেমনি একজন ভিন্নধর্মী পাখি প্রেমী মানুষ। বার্ডে চাকরির পাশাপাশি পাখি ও জীববৈচিত্র নিয়ে কাজ করতে পারলে নিজেকে সুখী মানুষ ভাবেন তিনি। পাখিদের প্রেম ছুটির দিনেও দূরে কোথাও না গিয়ে যথাসময়ে পাখিদের খাবার বিলিয়ে দেন। পাখিরা এখন শাহজাহানের উপস্থিতি বুঝতে পেরে ছুটে চলে আসে তার কাছে। মানুষের মতই পাখিদেরও প্রতিদিন ৩/৪ বেলায় গম, পাউরুটি, পরটা, খিচুড়ি খাবার খেতে দেন তিনি। ডাক দিলেই ছুটে আসে শত শত বিভিন্ন প্রজাতির রং বেরঙের পাখি। খাবারের আশায় প্রতিদিন অসংখ্য পাখির আনাগোনায় মুখর হয়ে থাকে তার অফিসের বারান্দা। কুমিল্লা বার্ডে পাখিদের এমন দৃশ্যে মুগ্ধ হন আশেপাশের মানুষ। খাবার খেয়ে আবার যে যার মত উড়ে চলে যায়। এমন মনোরম দৃশ্য দেখে মনে প্রশান্তি জাগে পাখি প্রেমিসহ আশপাশের লোকজনের। নিজ খরচে পশু-পাখির প্রতি ব্যতিক্রমধর্মী এমন কাজে কেন উদ্বুদ্ধ হলেন, এমন প্রশ্নের জবাবে শাহজাহান বলেন, সৃষ্টির সেবাই শ্রষ্টার ইবাদত। আত্মতৃপ্তির জন্যই তিনি পাখি, প্রকৃতি ও বন্যপ্রাণিদের ভালবাসেন। পাখি যখন আকাশে উড়ে বেড়ায় তখন তাঁর খুব ভাল লাগে। পাখিদের কিচিরমিচির শব্দ শুনলে প্রাণ জুড়িয়ে যায়। মানুষের মত সব প্রাণির বঁচে থাকার অধিকার আছে।
জীববৈচিত্র রক্ষায় তাঁর পরিকল্পনা সুদূরপ্রসারী জানিয়ে তিনি আরো বলেন, পরিবেশ, প্রকৃতি, জলবায়ুর ভারসাম্য ঠিক রাখতে হলে প্রকৃতির প্রাণ জীববৈচিত্র পাখি-বন্যপ্রাণি এদেরকে টিকিয়ে রাখতে হবে।
পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় এদের ভুমিকা অনস্বীকার্য। প্রকৃতি বাঁচলে মানুষও বাঁচবে। তিনি আরো জানান, দীর্ঘ ৮ বছর ধরে কোটবাড়ি বার্ডের আইসিটি ভবন সংলগ্ন পল্লী সমাজতত্ত্ব ও জনমিতি অনুষদ ভবনের তৃতীয় তলায় চাকরির পাশাপাশি নিজ খরচে পাখিদের ৩/৪ বেলা খাবার দিয়ে আসছেন। ওখানে প্রতিদিন দোয়েল, বুলবুলি, শালিক, ঘুঘু, হলুদিয়া, জালালী কবুতর, দেশি কবুতরসহ বিভিন্ন প্রজাতির পাখিদের মিলনমেলায় পরিণত হয়। কবুতরের জন্য গম এবং শালিক, ঘুঘু, দোয়েলসহ বিভিন্ন প্রজাতির পাখিদের জন্য পাউরুটি, পরটা, পুরি ও খিচুড়ি ক্রয় করে খাওয়ান।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...