ব্রেকিং নিউজ :
উল্লাপাড়ায় নানা আয়োজনের মধ্যে দিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬ তম জন্মবার্ষীকি উৎযাপন নড়াইলের পাচগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ ভবন প্রতিষ্ঠার এক দশকেও নির্মিত হয়নি নড়াইলের পল্লীতে নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার বিশ্ব হার্ট দিবস কাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন উদযাপিত ৩০ নভেম্বরের মধ্যে এসএসসি নির্বাচনী পরীক্ষার ফল প্রকাশের নির্দেশনা শেখ হাসিনার জন্মদিন, জাতির উৎসবের দিন : ডেপুটি স্পিকার অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তির সর্বশেষ রিলিজ স্লিপের মেধা তালিকা প্রকাশ ২ অক্টোবর বিএনপি লাঠির সঙ্গে পতাকা বেধে রাস্তায় নামলে জবাব দেওয়া হবে : ওবায়দুল কাদের বাংলাদেশের বিশ্ব জয়ের স্বপ্ন সারথীর নাম শেখ হাসিনা : আলোচনা সভায় বক্তারা
  • আপডেট টাইম : 02/09/2022 03:12 AM
  • 34 বার পঠিত

দেশের ব্যাংক ও আর্থিক খাতের প্রাজ্ঞ বিশ্লেষক, দুর্নীতি বিরোধী  আপসহীন সাহসী মানুষ এবং শিশুদের মেধা ও সৃজনশীলতা বিকাশের অনন্য সাধক খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ স্মারক গ্রন্থ  প্রকাশ করা হয়েছে। 
আজ রাজধানীর কেন্দ্রীয় কচি-কাঁচা মেলার মিলনায়তনে আয়োজিত স্মারক গ্রন্থ প্রকাশনা অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান, কথাসাহিত্যিক আসমা আব্বাসী, পূবালী ব্যাংক লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক হেলাল আহমেদ চৌধুরী, পূবালী ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিউল আলম খান চৌধুরী, খোন্দকার মুহাম্মদ খালেদ, খোন্দকার সাঈদ হামিদ, কেন্দ্রীয় কচি-কাঁচার মেলার সভাপতি রওশন আরা ফিরোজ প্রমুখ  উপস্থিত ছিলেন।
গত ২০২১ সালের ২৪ ফেব্রয়ারী খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে  চলে  গেছেন।  তাঁর  প্রতি শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশের লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় কচি-কাঁচার মেলা এই স্মারক গ্রন্থটি প্রকাশ করেছে। 
স্মারক গ্রন্থে খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদের মেধা-প্রজ্ঞা, সামাজিক-রাজনৈতিক-অর্থনৈতিক ভাবনা ও বহুমাত্রিক কর্মযজ্ঞ নিয়ে তাঁর শুভানুধ্যায়ী, সুহৃদ-সুজনসহ সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সমৃদ্ধ রচনা এবং তাঁরই ¯েœহধন্য শিশু-কিশোরদের ভারাক্রান্ত হৃদয়ের স্মৃতিচারণ ছাড়াও তাঁর সামগ্রিক জীবনচিত্রের বিভিন্ন অংশ সংকলিত হয়েছে। স্মারক গ্রন্থটির রচনাগুলোকে ছয়টি পর্বে বিভক্ত করা হয়েছে। ‘স্মৃতিচিত্র’ পর্বে রয়েছে খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদের কর্মময় জীবনের ১১৪টি আলোকচিত্র।
খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ পেশাগত জীবনে ছিলেন বিশিষ্ট ব্যাংকার। শুধু নিষ্ঠাবান ব্যাংকারই নন, সংগঠক হিশেবেও খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ ছিলেন অনন্য। কচি-কাঁচার মেলা ছিল তাঁর আত্মার অবিচ্ছেদ্য অনুষঙ্গ। শিশু-কিশোরদের মন ও মননশীলতার চর্চায় এবং তাদের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ সাধনে তিনি আমৃত্যু সচেষ্ট ছিলেন।  রোকনুজ্জামান খান দাদাভাইয়ের তিরোধানের পর সুদীর্ঘকাল তিনি মেলা পরিচালনার দায়িত্ব নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করেছেন। বিশুদ্ধ ধর্মপ্রাণ এই মানুষটি আজীবন অসাম্প্রদায়িক চেতনার অনুসারী ছিলেন।
‘শ্রদ্ধা, স্মৃতি, সান্নিধ্য’ প্রথম পর্বের শিরোনামে খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদের পেশাগত জীবন ছাড়াও অন্যায়-অবিচার ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে তাঁর আপসহীন ভূমিকা এবং ব্যাংকিং খাতের সুষ্ঠু বিকাশে তাঁর যে মেধা ও দক্ষতার স্বাক্ষর তিনি রেখে গেছেন তা অনুপুঙ্খভাবে তুলে ধরা হয়েছে স্মারক গ্রন্থে। শিশু-কিশোররা তাঁদের আন্তরিক সান্নিধ্যের বিবরণ তুলে ধরেছে ভারাক্রান্ত হৃদয়ে। মোট ৬১টি রচনা এই পর্বে সংকলিত হয়েছে। বয়সে ছোট থেকে বড় এ ক্রমানুসারে রচনাগুলো সাজানো হয়েছে। 
‘সংবাদপত্রের শোক’ পর্বে ১৬টি নিবন্ধ ও সম্পাদকীয় এই গ্রন্থে সংকলিত হয়েছে। তৃতীয় পর্বে তাঁর কর্মজীবন, পেশাগত অভিজ্ঞতা ও প্রজ্ঞা, রাজনৈতিক-সামাজিক-অর্থনৈতিক ভাবনা এবং তাঁর জীবনাদর্শসহ কয়েকটি বিষয়কে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। তাঁর প্রকাশিত কয়েকটি গ্রন্থ থেকে ২৫টি রচনা স্মারকগ্রন্থে সংকলিত করা হয়েছে। পঞ্চম পর্বে রয়েছে ‘সাক্ষাৎকার, গবেষণা ও প্রকাশনা, অর্জন’। অপরটি শিশু-কিশোর আন্দোলন ও কচি-কাঁচার মেলা সম্পর্কে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...